Quantcast
  • শুক্রবার, ২৬ আষাঢ় ১৪২৭, ১০ জুলাই ২০২০

রূপকথাকে হার মানানো এক জুটির গল্প


সাতকাহন | আপডেট: ২২:৪০, জুন ১৪, ২০২০
 
 
 
 



হবস ও সাটক্লিফের অবিশ্বাস্য সেই জুটির পথচলা শুরু হয়েছিল ৯৬ বছর আগে এই দিনে। ১৯২৪ সালের ১৪ জুন, এজবাস্টনে প্রায় ৩০ বছর বয়সে টেস্ট অভিষেক হয়েছিল সাটক্লিফের; প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা। সেই দিনই ইংল্যান্ডের হয়ে প্রথমবারের মতো একসঙ্গে ইনিংস উদ্বোধন করতে নেমেছিলেন হবস ও সাটক্লিফ।

টেস্ট ক্রিকেটে হবস ততদিনে পার করে দিয়েছেন দেড় দশক। তখন পর্যন্ত টেস্টে শুরুর জুটিতে হাজার রান ছিল কেবল একটির। উইলফ্রেড রোডসের সঙ্গে সেই জুটির অংশও ছিলেন হবস। ৬১.৩১ গড়ে সেই জুটির রান ২১৪৬। পরের ছয় বছরে হবস-সাটক্লিফ জুটি স্পর্শ করে নতুন উচ্চতা, জায়গা করে নেয় ইতিহাসের পাতায়।

১৯২৪ থেকে ১৯৩০, হবস-সাটক্লিফ টেস্টে ইনিংসের শুরুতে একসঙ্গে ব্যাটিং করেন ৩৮ ইনিংসে। তাদের জুটিতে রান আসতে থাকে অনেকটা বানের স্রোতের মতো। সে সময়ে উদ্বোধনী জুটিতে রেকর্ড ৩২৪৯ রান করেছিলেন তারা ৮৭.৮১ গড়ে। টেস্ট ইতিহাসে উদ্বোধনী জুটিতে অন্তত তিন হাজার রান করা আর কোনো জুটির গড় তাদের ধারে কাছেও নেই। সবচেয়ে কাছে থাকা জুটির (বিল লরি ও বব সিম্পসনের ৬০.৯৪) চেয়ে যা বেশ এগিয়ে।

তাদের ৩৮ ইনিংসের ১৫টিই ছুঁয়েছিল তিন অঙ্ক। শুরুর জুটিতে বেশি সেঞ্চুরি জুটি আছে কেবল গর্ডন গ্রিনিজ ও ডেসমন্ড হেইন্সের। তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের এই জুটির ১৬টি সেঞ্চুরির জন্য লেগেছিল ১৪৮ ইনিংস।

গড়ে ২.৫৩ ইনিংসে একটি করে সেঞ্চুরি এসেছে হবস-সাটক্লিফ জুটিতে। সেঞ্চুরির হিসেবে শুরুর জুটিতে অন্তত তিন হাজার রান করা অন্য আট জুটির মধ্যে দ্বিতীয় সেরা গড় সুনীল গাভাস্কার-চেতন চৌহানের। প্রতিটি সেঞ্চুরির জন্য এই জুটির লেগেছে গড়ে ৫.৯ ইনিংস (৫৯ ইনিংসে ১০ সেঞ্চুরি)। গ্রিনিজ-হেইন্স জুটিতে সেঞ্চুরি হয়েছে গড়ে ৯.২৫ ইনিংসে।

হবস-সাটক্লিফ জুটির পথচলার শুরুটা ছিল রাজকীয়; তিন অঙ্কের। এজবাস্টনে সাটক্লিফের অভিষেক ইনিংসের সেই দিনে জুটির রান ছিল ১৩৬। লর্ডসে পরের ম্যাচে তাদের জুটি ছুঁয়ে ফেলে দুইশ। ২৬৮ রানের ওই জুটি তখন ছিল উদ্বোধনী জুটিতে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। সেই দুই টেস্টে ইংল্যান্ডের জয়ের ব্যবধান ছিল একই, ইনিংস ও ১৮ রানে!

ওই সিরিজে পরের তিন ইনিংসে আর সেঞ্চুরি ছুঁতে পারেনি তাদের জুটি। তবে পরের সিরিজ অ্যাশেজে টানা তিন ইনিংসে উপহার দেন তারা তিনটি সেঞ্চুরি জুটি! দুই ইনিংস পর আরেকটি। টানা তিন ইনিংসে সেঞ্চুরি জুটি গড়েছিলেন তারা পরে আরও একবার।

তাদের জুটিতে সাফল্য যত বেশি, ব্যর্থতা ঠিক ততটাই কম। ৩৮ জুটির মধ্যে ২০ রানের কমে শেষ হয়েছে কেবল ৬টি। মোট ইনিংসের যা ১৬ শতাংশের কম। শুরুর জুটিতে সবচেয়ে বেশি রান (৬৪৮২) করা গ্রিনিজ-হেইন্সের ১৪৮ ইনিংসের মধ্যে ২০ রানের কমে ভেঙেছে (অপরাজিত বাদে) ৬০টি। শতকরা হিসেবে ৪০.৫৪ শতাংশ।

তবে শুধু পরিসংখ্যান দেখলে বোঝা যাবে না হবস-সাটক্লিফ জুটির ওজন। তারা যে যুগে ব্যাটিং করেছেন, তখন উইকেট ঢেকে রাখার কোনো ব্যাপার ছিল না। রোদ-বৃষ্টি-ঝড়ে অনেক সময়ই উইকেট হয়ে উঠত ব্যাটসম্যানদের জন্য মরণফাঁদ। সে যুগেই ভয়ঙ্কর সব বোলারকে সামলেছেন তারা হেলমেট ছাড়া। করেছেন রান উৎসব।