Quantcast
  • বৃহস্পতিবার, ১০ আষাঢ় ১৪২৮, ২৪ জুন ২০২১

শ্রীলঙ্কার কাছে ২০৯ রানে বাংলাদেশ পরাজয়


সাতকাহন ডেস্ক | আপডেট: ১৪:২৫, মে ০৩, ২০২১
 
 
 
 


বাংলাদেশের টার্গেট পাহাড় সমান ৪৩৭ রান। আগের দিনের সংগ্রহ ছিলো ৫ উইকেটে ১৭৭ রান। তাই জিততে হলে বাংলাদেশের প্রয়োজন ছিলো ২৬০ রান। যা প্রায় অসম্ভব ব্যাপার। কারণ প্রথম সারির পাঁচ ব্যাটসম্যানকে হারানো টাইগাররা এত রান তাড়া করে জিতবে পাল্লেকেলের স্পিন ট্রাক উইকেটে? এটাই বড় প্রশ্ন ছিল। আর টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে সর্বোচ্চ ৪১৮ তাড়া করে জয়ের রেকর্ড আছে উইন্ডিজের। জিততে হলে ভাঙতে হবে সেই রেকর্ড। তবে তা আশায় গুড়েবালি। সকালের শুরুতেই লিটনকে ফিরিয়ে বাস্তবতার প্রমাণ রাখে লঙ্কানরা।দারুণ খেলা মিরাজ নিভতে যাওয়া শলতেতে দিচ্ছিলেন জ্বালানির যোগান। দলীয় ২২৭ রানের পর নিভে গেছে আশার আলোটুকুও। বাংলাদেশের শেষ তিন ব্যাটসম্যান দলের স্কোর বোর্ডে কোন রান না যোগ করে ফিরেছেন প্যাভিলিয়নে। মাত্র দেড় ঘণ্টায় বাংলাদেশ অলআউট ২২৭ রানে।দেড় ঘণ্টায় লেখা হলো ক্যান্ডি টেস্টের ভাগ্য। প্রত্যাশিত জয় পেলো স্বাগতিকরা। পঞ্চম ও শেষ দিনে বাংলাদেশকে ২২৭ রানে গুটিয়ে দিয়ে, ২০৯ রানে জিতেছে শ্রীলঙ্কা। এ জয়ে সিরিজ ১-০'তে জিতে নিলো তারা। অভিষেকে রেকর্ড গড়ে দুই ইনিংস মিলিয়ে ১১ উইকেট শিকার করে ম্যাচসেরা হয়েছেন লঙ্কান স্পিনার জয়াবিক্রমা। আর সিরিজ সেরা হয়েছেন অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে।ট্রফিটা তাদের হাতেই মানায়। ক্যান্ডি টেস্টের পাঁচ দিনই ধারাবাহিকভাবে ভাল ক্রিকেট খেলেছে লঙ্কানরা। তাই এলিট ক্রিকেটের সিরিজ তাদের। যদিও, ক্রিকেট বিধাতা একটা সুযোগ দিয়েছিলেন মুমিনুলের দলকে। শ্রীলঙ্কার আবহাওয়া অফিস জানিয়েছিলো, স্থানীয় সময় দুপুর ১২টার পর বৃষ্টি হবে সারাটা দিন। ক্যান্ডির আকাশ ভেঙে বর্ষণ হবে। কিন্তু দুপুর ১২টা পর্যন্ত এই সময়টুকুও টিকতে পারেনি বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। দেড় ঘণ্টার ব্যবধানে গুটিয়ে গেছে তারা।