Quantcast
  • বৃহস্পতিবার, ১০ আষাঢ় ১৪২৮, ২৪ জুন ২০২১

লাফিয়ে বাড়ছে ভোজ্য তেলের দাম


সাতকাহন ডেস্ক | আপডেট: ১০:৪৮, মে ২৮, ২০২১
 
 
 
 


আন্তর্জাতিক বাজারে ভোজ্যতেলের দামে অস্থিরতায় দেশে ভোজ্যতেলের দাম আরেক দফা বাড়ানো হচ্ছে। এবার একলাফে লিটারপ্রতি সয়াবিন তেলের দাম বাড়ছে ৯ টাকা।আগামী শনিবার থেকে বর্ধিত দাম কার্যকর হবে। বুধবার রাতে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বাংলাদেশ ভেজিটেবল অয়েল রিফাইনার্স অ্যান্ড বনস্পতি ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যাসোসিয়েশন ভোজ্যতেলের এই বাড়তি দামের কথা জানায়।ঈদের পর ভোজ্যতেলের দাম বাড়িয়ে লোকসান সমন্বয়ের আভাস দিয়েছিল দেশে ভোজ্যতেল উৎপাদন ও বিপণনকারী কোম্পানিগুলোর সংগঠন বাংলাদেশ ভেজিটেবল অয়েল রিফাইনার্স অ্যান্ড বনস্পতি ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যাসোসিয়েশন।সংগঠনের তথ্যমতে, শনিবার থেকেই দেশে প্রতি লিটার বোতলজাত সয়াবিন তেল ১৫৩ টাকায় বিক্রি হবে, যা এত দিন ছিল ১৪৪ টাকা। পাঁচ লিটারের বোতলজাত সয়াবিন তেল বিক্রি হবে ৭২৮ টাকায়, যা আগে ছিল ৬৭০ টাকায়। লিটারপ্রতি খোলা সয়াবিন তেল ১২৯ টাকা ও পাম সুপার তেল ১১২ টাকায় বিক্রি হবে।বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব এবং আমদানি ও অভ্যন্তরীণ বাণিজ্য বিভাগের (আইআইটি) প্রধান এ এইচ এম সফিকুজ্জামান ভোজ্যতেলের দাম বাড়ানোর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।এর আগে অনিয়মতান্ত্রিকভাবে ভোজ্যতেলের দাম লিটারে পাঁচ টাকা বাড়ানোর ঘোষণা দেয় বাংলাদেশ ভেজিটেবল অয়েল রিফাইনার্স অ্যান্ড বনস্পতি ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যাসোসিয়েশন। তবে সরকারের চাপে দাম বাড়ানোর তিন দিনের মাথায় তিন টাকা কমাতে বাধ্য হয়েছিল।তখন বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে করোনা, লকডাউন, রমজান এবং ভোক্তার ক্রয়ক্ষমতার সার্বিক বিষয় চিন্তা করে ভোজ্যতেল পরিশোধন ও বিপণনকারী ব্যবসায়ীদের দাম কমানোর অনুরোধ করলে দুই টাকা বর্ধিত দাম কার্যকর করা হয়। এত দিন ধরে ওই দামেই ভোজ্যতেল বিক্রি হয়ে আসছিল।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে জানা গেছে, আমদানি মূল্য ধরে মন্ত্রণালয়ে লিটারপ্রতি ভোজ্যতেলের দাম ১৩ টাকা বাড়ানোর প্রস্তাব দিয়েছিল অ্যাসোসিয়েশেন। পরে মন্ত্রণালয় ওই প্রস্তাব থেকে চার টাকা কমিয়ে অনুমোদন দেয়।আরও জানা গেছে, সরকার প্রতি টন অপরিশোধিত সয়াবিন তেলের দাম ১১০০ ডলার ধরে ৯ টাকা বাড়তি দাম নির্ধারণ করেছে। কিন্তু বিশ্ববাজারে এই মুহূর্তে টনপ্রতি অপরিশোধিত সয়াবিন তেলের দাম ১৪৬০ ডলার ছাড়িয়ে গেছে।

এই দাম না কমলে, বর্তমান স্টক শেষ হলে বা নতুন আমদানি মূল্যের তেল বাজারে এলে দাম আরও বাড়ানো হতে পারে। সরকারকে ভোজ্যতেলের ব্যবসায়ীরা এমন আভাসই দিয়েছেন।