Quantcast
  • রবিবার, ১৬ কার্তিক ১৪২৭, ৩১ অক্টোবর ২০২০

কাওরাইদ -বরমী সংযোগ সড়কটি যেন মরণফাঁদ!


আতাউর রহমান সোহেল | আপডেট: ১৯:২২, অক্টোবর ০৯, ২০২০
 
 
 
 


গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার কাওরাইদ – বরমী সংযোগ সড়কটি  এখন মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। দীর্ঘদিন যাবৎ রাস্তাটি সংস্কার না করায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রতিনিয়ত এই রাস্তাদিয়ে  চলাচল করছে ছোট- বড়   যানবাহনসহ  ঐ  এলাকার হাজারো মানুষ। রাস্তাটি নির্মাণের পর থেকে প্রয়োজনীয় সংস্কারের অভাবে চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। এ রাস্তা দিয়ে রাতে বা দিনে চলাচল করতে গিয়ে কখনো কখনো বড় গর্তে পড়তে হচ্ছে  । কাওরাইদ ও পার্শবর্তী উপজেলা গফরগাঁও   এলাকার সকল জনসাধারণের উপজেলার সাথে যোগাযোগের ক্ষেত্রে এই রাস্তাটি ব্যবহার করা হয়। এছাড়াও প্রতিনিয়ত এ রাস্তা দিয়ে শতশত রিকশা, ভ্যান, ইজিবাইক, টমটম, নসিমন, করিমন, সিএনজি, গরুরগাড়ি ও  পিক-আপ ভ্যানসহ বিভিন্ন রকমের মোটরযান চলাচল করে।

এ সংযোগ সড়কের  বহু স্থানে  পিচ, পাথর ও খোয়া কার্পেটিং উঠে গিয়ে খানাখন্দে পরিণত হয়েছে। অনেক জায়গায় বড় বড় খানাখন্দক সৃষ্টি হওয়ায় যানবাহন চলাচল করে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে। সামান্য বৃষ্টিপাত হলেই বৃষ্টির পানি জমে এসব মরণ ফাঁদে পরিণত হয় রাস্তাটি।বিশেষ করে বাপ্তা হাজী বাড়ী, মতিনের বাড়ী ও বাপ্তা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়,মোফাজ্জলের চায়ের দোকানসহ এ সড়কের বিভিন্ন স্থানে  পানির ড্রেন ভেঙ্গে গিয়ে গর্তের সৃষ্টি হওয়ায় এখন রাস্তাটি চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে ।   উপজেলার সাথে যোগাযোগের রাস্তা হওয়ায় অত্যন্ত জনগুরুত্বপূর্ণ একটি  রাস্তা এটি। বাপ্তা বেলদিয়া সরকারী প্রাইমারী বিদ্যালয়ের  সন্ন্যিকটে একটি কালভার্ট ভেঙ্গে দির্ঘদিন ধরে পড়ে আছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বা স্থানীয় জনপ্রতিনিধি কেউ এই বিষটি আমলে নিচ্ছেন না। কালভার্টের প্রায় অর্ধেক ভেঙ্গে বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নাকের ডগায় থাকলেও কোন লাভ হচ্ছে না স্থানীয় ভুক্তভোগীদের। দীর্ঘদিন ধরে রাস্তাটি মরন ফাঁদে পরিনত হলেও মেরামতের জন্য নেওয়া হয়নি কোন উদ্যোগ। ভেঙ্গে যাবার পর থেকে নিজেদের উদ্যোগে ঐ স্থানে গাছের ডাল দিয়ে বিপদজনক সংকেতিক চিহ্ন দিলেও টনক নড়েনি কর্তৃপক্ষের। উপজেলার কাওরাইদ বাপ্তা বৈরাগবাড়ি ও পার্শবর্তী উপজেলার নিগুয়ারী ইউনিয়ন সহ  কয়েক হাজার লোক মারাত্মক ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করছেন। এসব এলাকার স্কুল-কলেজগামী শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ। রাস্তাটি ভেঙ্গে খানা খন্দের সৃষ্টি হওয়ায় রাস্তায় চলাচলকৃত যাত্রীবাহি যানবাহন প্রায় দুর্ঘটনায় পতিত হয়ে অনেকেই আহত হচ্ছেন।

সরেজমিনে গিয়ে কথা হয় জসিম উদ্দিনের সাথে,তিনি বলেন বাপ্তা বেলদিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন স্থানে পানির ড্রেন ভেঙ্গে গিয়ে বড় গর্তের সৃষ্টি হওয়ায়  চলাচলে বিগ্ন ঘটছে ।  কাওরাইদ টু বরমীর জনগুরুত্বপূর্ন এ রাস্তাটি কাওরাইদ  থেকে শুরু হয়ে বৈরাগবাড়ি পর্যন্ত প্রায় জায়গায়ই গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। স্থানীয় এক কলেজ ছাত্র জয়ের সাথে কথা হয়, তিনি জানান  এ পর্যন্ত ৫ জন পথচারী নারী-পুরুষ ভাঙ্গা স্থানে পড়ে আহত হয়েছে। দুর-দুরান্তেরর মানুষের চলাচলের ব্যস্ততা  আবার বরমীর মতো বড় বাজারে রয়েছে বিশাল ধানের হাট । হাটের দিন এ রাস্তায় ব্যস্ততা বেড়ে যায় । বরমী কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্র মাহিম বলেন এ রাস্তা দিয়ে সর্বনিন্ম ৪০ টি গ্রামের মানুষ চলাচল করে প্রতিনিয়ত। কাওরাইদ টু বরমীর  সড়কটি অতিব্যস্ততম, এ বাজারে রয়েছে বড় ধানের হাটের পাশাপাশি কাঁচা মালের হাট, কলেজ, হাইস্কুল, ব্যাংকসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান রয়েছে।

কাওরাইদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান  এডভোকেট আজিজ বলেন আমাদের প্রায় প্রতিনিয়ত এ রাস্তা দিয়ে চলাচল করতে হয়। রাস্তাটির বেহালদশা  বৃহত্তর জনস্বার্থে দ্রুত রাস্তাটি মেরামত করা প্রয়োজন