Quantcast
  • বৃহস্পতিবার, ২৩ বৈশাখ ১৪২৮, ০৬ মে ২০২১

গাছের ডালে ডালে শোভা পাচ্ছে জামরুল


সাইফুল ইসলাম | আপডেট: ১৩:১৮, মে ০৪, ২০২১
 
 
 
 


ফলের মওসুম শুর হয়েছে । বিভিন্ন ফলের মধ্যে জামরুলও দেখতে পাওয়া যাচ্ছে। এই সময়টাতেই সাধারণত জামরুল বাজারে আসে। ফলটি দেখতে যেমন সুন্দর তেমনি এর গুণাবলীও অনেক।এক রকমের হালকা সবুজ রঙের মিষ্টি ফল। লাল রঙের জামরুলও পাওয়া যায়। এই ফলকে ঢাকাইয়া ভাষায় আমরূজ ও বলা হয়। দেশের কোন কোন অঞ্চালে সাদা জাম অথবা মণ্ডল হিসাবে ও পরিচিত। সাধারনত বীজ থেকে গাছ হয়, কিন্তু ডাল কেটে জলে রাখলে শেকড় জন্মায়।

জামরুল গাছে পোকা-মাকড় ও রোগবালাইয়ের তেমন কোনে উপদ্রব দেখা যায় না। কচি পাতা খেকো পোকার আক্রমণ কদাচিৎ দেখা যায়। এদের দমনের জন্য প্রতি লিটার জলে ২ মিলি সুমিথিয়ন মিশিয়ে আক্রান্ত গাছে স্প্রে করতে হবে।আন্দামান-নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ হতে পর্তুগিজ নাবিকেরা প্রথম এই ফল অত্র অঞ্চলে নিয়ে আসে। ইংরেজি নাম Eugenia javanica। এর আঞ্চলিক নাম অনেক। যেমন- জামরুল, আমরুজ, কোন কোন অঞ্চলে লকট নামেও পরিচিত। জামরুল বিভিন্ন রঙের হয়ে থাকে। তবে সাদা, হালকা সবুজ ও লাল-গোলাপী রঙেরই বেশি দেখা যায়।


জামরুল ফল দেখতে ঘন্টাকৃতির। এ কারণে এটি Bell Fruit নামেও পরিচিত। জামরুল ফলের মধ্যে একটি ছোট বীজ থাকে। এই ফলের গাছ চির সবুজ ও মাঝারি আকারের হয়ে থাকে। মার্চ-এপ্রিল মাসে ফুল আসে এবং মে-জুনে ফল পাকে।রসালো ও আঁশবিহীন এই ফল হালকা মিষ্টি ও পানি পানি স্বাদের হয়ে থাকে। এটি একটি ভিটামিন বি-২ সমৃদ্ধ ফল। ফলের উপরের অংশ মসৃণ ও তেল তেলে।জামরুলের পুষ্টিগুণ অনেক। এতে খনিজ পদার্থ রয়েছে কমলার তিন গুণ এবং আম, আনারস ও তরমুজের সমান। ক্যালসিয়ামের পরিমাণ লিচু ও কুলের সমান এবং আঙুরের দ্বিগুণ। আয়রনের পরিমাণ কমলা, আঙুর, পেঁপে ও কাঁঠালের চেয়েও বেশি। ফসফরাসের পরিমাণ আপেল, আঙুর, আম ও কমলার চেয়ে বেশি।সহজলভ্য জামরুল স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারি। এই ফল হজম শক্তি বৃদ্ধিতে সহায়ক, কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে, ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে কার্যকর ভূমিকা রাখে। জামরুলে রয়েছে ক্যান্সার প্রতিরোধের উপাদান। কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে দারুণ কার্যকরি। মস্তিষ্ক ও লিভার সুরক্ষায় জামরুল টনিক হিসাবে কাজ করে। বাত নিরাময়ে এটি ব্যবহার করা হয়। ত্বকের ভাইরাস সংক্রমণ ঠেকায় এই ফল। লিভার আর কিডনির বিষ দূর করে বিপাক ক্রিয়া সুষ্ঠু রাখতে যেন এক অব্যর্থ টোটকা এই জামরুল। আর এর বিচি ডায়রিয়া প্রতিরোধে ওষুধের মতো কাজ করে।