Quantcast
  • বৃহস্পতিবার, ২০ ফাল্গুন ১৪২৭, ০৪ ‍্মার্চ ২০২১

সিলেটে কর্মচারী-পরিবহন শ্রমিক সংঘর্ষে আহত-২


সাতকাহন ডেস্ক | আপডেট: ২১:৪৫, ফেব্রুয়ারী ১৭, ২০২১
 
 
 
 


অবৈধ স্ট্যান্ড উচ্ছেদ নিয়ে সিলেট সিটি করপোরেশনের কর্মচারী ও পরিবহন শ্রমিকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। ভাঙচুর করা হয়েছে অসংখ্য গাড়ি। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে গিয়ে পরিবহন শ্রমিকদের হামলায় দুই কাউন্সিলর আহত হয়েছেন।

বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে নগরের চৌহাট্টা এলাকায় সংঘর্ষের এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, এদিন সকাল ১১টার দিকে সিলেট সিটি করপোরেশনের (সিসিক) কর্মচারীরা ফুটপাতে সৌন্দর্যবর্ধনের কাজ শুরু করতে গেলে পরিবহন শ্রমিকরা বাধা দেয়। এর প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ করে রাখে তারা। এরপর উত্তেজিত শ্রমিকরা সিসিকের কর্মচারীদের লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করা শুরু করে। দুপুর ১২টা ৪০ মিনিটে শ্রমিকরা পুরোদমে সংঘর্ষে জড়ায় এবং অন্তত ২৬টি গাড়ি ভাঙচুর করে।

সিসিকের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ঘটনাস্থলে গিয়ে শ্রমিকদের শান্ত করার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন।

খবর পেয়ে সিসিকের কয়েকজন কাউন্সিলর ঘটনাস্থলে গিয়ে শ্রমিকদের শান্ত করার ব্যর্থ চেষ্টা চালালে পরিবহন শ্রমিকরা তাদের সংগঠনের যুগ্ম সম্পাদক সাবেক ছাত্রদল নেতা আলী আকবর রাজনের নেতৃত্বে কাউন্সিলরদের উপর হামলা চালায়। শ্রমিকদের হামলায় আহত হন ৪ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর রেজাউল হাসান কয়েস লোদি ও ৮ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ইলিয়াসুর রহমানসহ কয়েকজন।

পরে পুলিশ শ্রমিকদের সরিয়ে দিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। এসময় ধাওয়া করে এক নলা বন্দুকসহ ফয়সল আহমদ ফাহাদ (৩৮) নামে এক পরিবহন শ্রমিককে আটক করা হয়।

মহানগর ট্রাফিক পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার ফয়সল মাহমুদ বলেন, সড়ক দখল করে শ্রমিকরা অবৈধভাবে স্ট্যান্ড গড়ে তোলে। সিসিকের উন্নয়ন কাজ শুরু হওয়ায় চৌহাট্টাস্থ এলাকার অবৈধ পরিবহন স্ট্যান্ড সরানোর জন্য বলা হলেও শ্রমিকরা যানবাহন না সরিয়ে সিসিকের শ্রমিকদের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়ায়।

এদিকে পুলিশের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি সাময়িক শান্ত হলেও থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। ভাঙচুর করা গাড়িগুলো কোতোয়ালি থানা কম্পাউন্ডে নেওয়া হচ্ছে।