Quantcast
  • রবিবার, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৯ অগাস্ট ২০২০

করোনা কোন ক্ষতিই করতে পারছে না আমেরিকায়: ট্রাম্প


সাতকাহন ডেস্ক | আপডেট: ১৩:০০, জুলাই ০৫, ২০২০
 
 
 
 


স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞগণের অনুরোধ আবারও উপেক্ষা করেই ৪ জুলাই শনিবার যুক্তরাষ্ট্রের ২৪৪তম স্বাধীনতা দিবসের বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠান করলেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। মাস্ক ব্যবহার দূরের কথা, সোস্যাল ডিসটেন্সিং-ও বজায় রাখেননি হোয়াইট হাউজের এ অনুষ্ঠানের কোন অতিথিই। অধিকন্তু ট্রাম্প তার ভাষণে বলেছেন যে, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ৯৯% এরই কিছু হচ্ছে না। সেটি কোন ক্ষতিই করতে পারছে না আমেরিকায়। হোয়াইট হাউজের সাউথ লনে এবং ন্যাশনাল মলে জড়ো হওয়া মানুষের সমাবেশে ট্রাম্প আবারও চীনকেই দুষলেন করোনার উৎপত্তি এবং যুক্তরাষ্ট্রসহ সারাদেশে পাচারের জন্যে।

ট্রাম্প যখন স্বাধীনতা দিবসের আতসবাজি প্রত্যক্ষ করছিলেন ফার্স্টলেডি মেলানিয়াকে পাশে নিয়ে, সে সময়েই ফ্লোরিডা (তার নতুন ঠিকানা) স্টেট থেকে স্বাস্থ্য বিভাগ খবর দেয় যে, এদিন সেখানে ১১৪৫৮ জন নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে। আগের দুদিনেও দৈনিক ১০ হাজারের বেশী মানুষ সেখানে আক্রান্ত হন। টেক্সাস, ক্যালিফোর্নিয়া, আরিজোনা, নর্থ ক্যারলিনা, সাউথ ক্যারলিনা, মিজৌরি, আলাবামা, টেনেসী, আলাস্কা, আইডাহো সহ ১৪ স্টেটে একইধারায় বেড়েছে আক্রান্তের সংখ্যা। সারা আমেরিকায় দৈনিক গড়ে ৫৫ হাজারের অধিক মানুষ করোনায় আক্রান্ত হচ্ছে বলে সিডিসি জানায়। এমনি অবস্থায় ট্রাম্পের এই আয়োজন নিয়ে সর্বত্র সমালোচনার ঝড় বইছে। হোয়াইট হাউজের আশপাশের রাস্তায় ব্যাপক বিক্ষোভ হয়েছে সাধারণ মানুষকে এভাবে স্বাস্থ্যঝুঁকিতে নিপতিত করার জন্যে। কারণ, হোয়াইট হাউজ ছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের আর কোথাও ঘটা করে স্বাধীনতা দিবস উদযাপিত হয়নি। সকলেই করোনার কারণে সবকিছু সীমিত করেছে। হোয়াইট হাউজ থেকে পূর্বাহ্নে জানানো হয় যে, অনুষ্ঠানে আগত সকলেই মাস্ক পরবেন. সেজন্যে ৩ লাখ মাস্ক বিনামূল্যে বিতরণ করা হবে। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার ব্যবস্থা হবে। বাস্তবে তার কোনই প্রতিফলন ঘটেনি। এমনকি, প্রশাসন থেকেও সে ধরনের নির্দেশ প্রতিপালনে সকলকে বাধ্য করার কোন তৎপরতাও পরিলক্ষিত হয়নি। ট্রাম্পের দাবি অনুযায়ী করোনায় আক্রান্তদের ৯৯% এরই কিছু হচ্ছে না। অথচ বাস্তবে আক্রান্তদের ৪% মারা গেছে এ যাবত।

ট্রাম্প উল্লেখ করেছেন যে, এ যাবত প্রায় ৪ কোটি আমেরিকানের করোনা টেস্ট সম্পন্ন হয়েছে। উল্লেখ্য, এ যাবত ২৮ লাখ আমেরিকান করোনায় আক্রান্ত হন এবং মারা গেছেন প্রায় এক লাখ ৩০ হাজার জন। যার শতকরা হার প্রায় ৪%। ট্রাম্পের গঠিত করোনাভাইরাস টাস্কফোর্সের শীর্ষস্থানীয় চিকিৎসক ড. এ্যান্থনী ফাউসি বারবার উদাত্ত আহ্বান জানান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে লোকসমাগম না ঘটানোর জন্যে। সীমিত আকারে অনুষ্ঠান করা হলেও যেন সকলে মাস্ক পরেন এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখেন-সে অনুরোধও জানিয়েছেন। কিন্তু প্রেসিডেন্ট নিজেই সে অনুরোধ রক্ষা করেননি। ৩ জুলাই শুক্রবার ট্রাম্পের আরেকটি সমাবেশে ৩৭০০ লোকের সমাগম ঘটেছিল। সেখানেও মাস্ক পরেননি কেউই।